Header Ads

আজব কথা ! ওরা মেরে, বিতাড়িত করে আবার আশ্রয় কেন্দ্র ও দিবে ?

রাখাইন রাজ্যের গৃহহীন মুসলিমদের জন্য মিয়ানমার সরকার আশ্রয়কেন্দ্র  করবে বলে রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে। আজ শনিবার দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থা গ্লোবাল নিউ লাইট এ দাবি করেছে। ১৬ দিন ধরে চলা এই সংকটের মধ্যে সরকারিভাবে রোহিঙ্গাদের সহায়তার ঘোষণা এটাই প্রথম। 

রাখাইন রাজ্য থেকে গত দুই সপ্তাহে প্রায় দুই লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। বাংলাদেশ মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপত্তা অঞ্চল করার তাগিদ দিয়েছিল। 

মিয়ানমারের রাখাইন  রাজ্যের  প্রায় ২৭ হাজার বৌদ্ধও হিন্দু দেশটির আশ্রম ও বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। মিয়ানমার সরকার বলেছে, রোহিঙ্গাদের জন্য  দেশটির  উত্তর, দক্ষিণ ও রাখাইন রাজ্যের মাংদাওয়ে তিনটি ক্যাম্প করবে। 

গৃহহীন রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সাহায্য ও চিকিৎসাসেবা দেবেন মিয়ানমার রেডক্রসের কর্মীরা।  

গত বছরের অক্টোবরে সন্ত্রাসীরা পুলিশ থানায় হামলা চালায়। তার পর থেকে   তিন লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা দেশ ছেড়েছে। এই সংখ্যা মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের তিন ভাগের এক ভাগ ধারণা করা হচ্ছে। 

মিয়ানমার ইউএনের মানবাধিকার বিশেষ দূত জাংঘি লি শুক্রবার বলেন, মিয়ানমারে সহিংসতায় কমপক্ষে এক হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। 

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর সহিংসতা ও নির্যাতনের নিন্দা জানিয়েছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই ও দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী নেতা নোবেলজয়ী ডেসমন্ড টুটু। 
Powered by Blogger.