Header Ads

মানুষরূপী রাক্ষসী সুচি মানবতার কলংক, রোহিঙ্গাদের সম্মানের সাথে ফিরিয়ে নিতে হবে: শায়খ জিয়া উদ্দিন

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা মুসলমানাদের উপর আং সান সুচির সেনাবাহিন ও বৌদ্ধ সন্ত্রাসী কর্তৃক অমানবিক নির্যাতন, খুন, ধর্ষণ, বাড়ী-ঘর পুড়িয়ে দেয়ার প্রতিবাদে ও গণহত্যা বন্ধের দাবীতে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও সিলেট জেলা সভাপতি মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দিন।

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী গতকাল ২৫ সেপ্টেম্বর সোমাবার বিকেলে দলীয় কার্যালয় ধোপাদিঘির পূর্বপারস্থ আল-ফালাহ টাওয়ার এর সামনে থেকে জমিয়তে উলামায়ের ইসলামের হাজারো নেতাকর্মী নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে চৌহাট্টা পয়েন্টে এক পথসভায় মিলিত হয়। 

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে সিলেট জেলা জমিয়তের সভাপতি মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দিন বলেন, কথিত শান্তিতে নোবেল প্রাপ্ত অং সান সুচি পৃথিবীতে সবচেয়ে ঘৃণিত হত্যাকারী। সুচি পৃথিবীর সর্বকালের সকল হত্যাকান্ডের চেয়েও বীভৎসভাবে মানুষ খুন করছে। সুচির সেনাবাহিনী যে ভাবে মানুষ খুন করছে, সেভাবে মানুষ জানুয়ারকেও হত্যা করে না। সুচি মানুষ ও মানবতার কলংক। মানুষরূপী এই রাক্ষসী সুচির বীভৎস হত্যাকান্ডের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের জন্য বিশ^ নেতৃবৃন্দের প্রতি তিনি আহবান জানান। মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দিন রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধের মিয়ানমার সরকারকে উপর্যুপরি চাপ প্রয়োগ করার জন্য মুসলিম বিশে^র শীর্ষ নেতৃবৃন্দের প্রতি কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জোর দাবি জানিয়ে বলেন, রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কেও মানবতার পক্ষে আওয়াজ তুলতে হবে। প্রয়োজনে অর্থনৈতিক অবরোধ আরো করতে হবে এবং মুসলিম সংখ্যালঘুদের ওপর নৃশংস গণহত্যা পরিচালনার দায়ে এবং মানবতা বিরোধী অপরাধের কারণে মিয়ানমার সরকারকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর উদ্যোগে নিতে হবে। কসাই অং সান সুচি বিশে^র এক নাম্বার জঙ্গি, সে খুনি হিসেবে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।
তিনি সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, বাংলাদেশের স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখে রোহিঙ্গা মুসলমানদের মানবিক ও নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠার এবং গণহত্যা বন্ধ ও তাদেরকে সম্মানের সাথে স্বদেশে ফিরিয়ে নিয়া জন্য কূটনৈতিক তৎপরতা জোরদার করুন। কফি আনান সুপারিশ বাস্তবায়ন করতে হবে। মিয়ানমার কথা না শুনলে তাদের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা করুন। বিশে^র কোটি কোটি তৌহিদী জনতা আপনাদের পাশে থাকবে। রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যার স্থায়ী সমাধানে প্রধানমন্ত্রীকে অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহবান জানান। শেষে মোনাজাত পরিচালনা করেন আল্লামা শায়খ আব্দুস শহীদ গলমুকাপনী।

সিলেট জেলা জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান ও মহানগর সাধারণ সম্পাদক হাফিজ ফখরুযযামানের যৌথ পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা জমিয়তের সহ সভাপতি মাওলানা শায়খ আব্দুস শহীদ গলমুকাপনী, জামেয়া তোয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা মুহতামিম মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহান, মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, জেলা সহ-সভাপতি মাওলানা মুশাহিদ আলী, মাওলানা আব্দুল মতিন নাদিয়া, মাওলানা হাবিবুর রহমান, মাওলানা ফয়জুল হাসান খাদিমানী, মহানগর সহ সভাপতি মাওলানা খয়রুল হোসাইন, আব্দুল গফফার ছয়ঘরী, জেলা যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা আসরারুল হক, সহ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মালিক কাসেমী, মাওলানা নূর আহমদ কাসেমী, মহানগর যুগ্ম সম্পাদক কারী মাওলানা সিরাজুল ইসলাম, আলহাজ¦ জুবায়ের আল মাহমুদ, সৈয়দ সলিম কাসেমী, ছাত্র জমিয়তের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এম. সাইফুর রহমান, মাওলানা আব্দুল মুকিত চৌধুরী, মুফতি মতিউর রহমান, মুফতী খন্দকার হারুনুর রশীদ, গোয়াইনঘাট উপজেলা জমিয়তের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মতিন, জৈন্তাপুর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা কবির আহমদ, কানাইঘাট উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মুফতি ইবাদুর রহমান, বিয়ানীবাজার উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল খালিক কাসেমী, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী সভাপতি মাওলানা ছয়ফুল আলম, সদর উপজেলা সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা নাজিম উদ্দিন, মাওলানা ফরিদ উদ্দিন কয়েছে, গোলাম আম্বিয়া কয়েছ, হাফিজ আলী হোসাইন, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা তোফায়েল আহমদ উসমানী, মাওলানা সদরুল আমিন, মাওলানা ওলিউর রহমানহাম্মদ আহমদ গাজী নগরী, মাওলানা মোহাম্মদ আলী, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, হাফিজ মাসউদ আজহার, আতিকুর রহমান নগরী, হাফিজ কবির আহমদ, মহানগর যুব জমিয়ত সভাপতি মাওলানা কবির আহমদ, হাফিজ কবির আহমদ, ছাত্র জমিয়ত সভাপতি মোঃ লুৎফুর রহমান, মাওলানা আখতারুজ্জামান, মাওলানা মখতার হোসাইন, হাফিজ আব্দুস সালাম, হাফিজ আব্দুর করিম দিলদার, আব্দুল হামিদ খান, এমাদ উদ্দিন সালিম, হাফিজ ফরহাদ আহমদ, ফয়েজ উদ্দিন, এহিয়া হামিদী, মাওলানা মতিউর রহমান, হাফিজ মনসুর বিন সালেহ, মুজাহিদুল ইসলাম খালেদ, আবু সুফিয়ান, আতিকুর রহমান, আবু বকর সিদ্দিক, আতিকুর রহমান মাহফুজ প্রমুখ। এছাড়া বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে প্রায় ৫ সহস্রা্ধিক জনতা অংশ গ্রহণ করেন। 

এ সময় মিছিলকারীরা রাখাইনে মুসলিম হত্যা বন্ধ কর, সুচির নোবেল ফিরিয়ে নাও এবং রোহিঙ্গাদের পুনর্বসান কর, ভাত দাও, কাপড় দাও, রোহিঙ্গাদের বাঁচতে দাও। গণতন্ত্রের মুখোশধারী অং সান সুচি স্বৈরাচারী। রাক্ষুসী সুচির বিচার চাই, ফাঁসি চাই ইত্যাদি শ্লোগান দিয়ে নগরীকে মুখরিত করে তোলে জমিয়ত নেতৃবৃন্দ।

Powered by Blogger.