Header Ads

তিন পুলিশকে ৫ ঘণ্টা বেঁধে রাখল বিক্ষুব্ধ জনতা

কুড়িগ্রামের রৌমারীতে এক ব্যক্তির পাওনা টাকা তুলে দিতে গিয়ে নামাজের চর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এক এএসআইসহ তিন পুলিশ সদস্য বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর তোপের মুখে পড়েন। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ওই তিন পুলিশ সদস্যকে আটক করে প্রায় ৫ ঘণ্টা বেঁধে রাখে।
শুক্রবার উপজেলার চর ইটালুকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রৌমারী থানার ওসির নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অবরুদ্ধ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে।অভিযোগে জানা যায়, নামাজের চর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই আলমগীর হোসেন দুই কনস্টেবল বেলাল হোসেন ও রবিউল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে চরইটালুকান্দা গ্রামের মুন্নাফ আলীকে তার বাড়ির সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে। মুন্নাফ আলীর অপরাধ, তার কাছে ২৭ হাজার টাকা পায় উত্তর নামাজের চর আছমত আলী নামের এক ব্যক্তি।
এর আগে পুলিশ আছমত আলীর সঙ্গে অলিখিত এক চুক্তিতে আসে। চুক্তি অনুযায়ী ২৭ হাজার টাকা তুলে দিতে পারলে পুলিশকে দেওয়া হবে ১০ হাজার টাকা। এই লোভে ওই তিন পুলিশ সদস্য মুন্নাফ আলীকে গ্রেপ্তার করে। তাকে নিয়ে যাওয়ার সময় চরইটালুকান্দা গ্রামের বিক্ষুব্ধ লোকজন তিন পুলিশ সদস্যকে আটক করে বেঁধে রাখে। ওই দিনই বিকেলে রৌমারী থানার ওসি অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে এসে অবরুদ্ধ পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করেন। এসময় গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন যে, নামাজের চর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সদস্যরা প্রায়ই মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়।
উৎসঃ   আরটিএনএন
Powered by Blogger.