Header Ads

মিরপুরে বৌদ্ধ বিহারে হামলার হুমকির পর নিরাপত্তা জোরদার

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে ঢাকার মিরপুরের শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহার ও তাদের পরিচালিত বনফুল আদিবাসী গ্রীন হার্ট কলেজে ‘হামলা’র উস্কানি দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে।
বুধবার এ ঘটনার প্রেক্ষিতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।
জানা যায়, ‘সবুজছায়া স্যোশাল ওয়েলফেয়ার’ নামে একটি ফেসবুক পেইজে প্রথমে এ উস্কানি দেয়া হয়। পড়ে সেটি ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ওয়ালে।
এ ঘটনায় বুধবার কাফরুল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। তবে মঙ্গলবার রাত থেকেই সেখানে নিরাপত্তা জোরদার করেছে পুলিশ।
জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, মিরপুর-১৩ নম্বর সেকশনের আহছানল্লাহ রোডের বনফুল কমপ্লেক্সে প্রতিষ্ঠিত বনফুল আদিবাসী গ্রিন হার্ট কলেজটি সুষ্ঠু ও সুশৃংখল পরিবেশে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। বিগত কয়েকদিন ধরে চলা মিয়ানমারের রোহিঙ্গা ইস্যুকে কেন্দ্র করে গত ৫ সেপ্টেম্বর একটি ফেসবুক পেইজ থেকে কলেজের বিরুদ্ধে উস্কানি দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। জিডির সঙ্গে তারা ফেসবুকের সেই পোস্টটির তিনটি স্ক্রিনশটও জুড়ে দিয়েছেন।
সেই পোস্টে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশে বসবাসকারী বৌদ্ধদের সকল কিছু বন্ধ করে দিতে হবে। তাদের পরিচালিত স্কুল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তালা দিতে হবে। তাদের জন্য সকল খাদ্য ও বস্ত্র সরবরাহ বন্ধ করে দিতে হবে।’
হুমকি বার্তার শেষে এক নম্বর টার্গেট হিসেবে শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহার ও বনফুল আদিবাসী গ্রীন হার্ট কলেজের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।
কাফরুল থানার ওসি সিকদার মো. শামীম মিডিয়াকে বলেন, হুমকির বিষয়টি জানার পর বৌদ্ধ বিহার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে জড়িতদের সনাক্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

Powered by Blogger.