Header Ads

কি নির্মমতা ! মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের কবর দিতেও দিচ্ছে না

নির্মমতা! জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে কিংবা গলাকেটে হত্যার পর উল্লাস- রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো এমন নৃশংসতার সঙ্গে বিশ্ব এখন পরিচিত। এবার লাশ দাফনে বাধা দিয়ে এতে নতুন মাত্রা দিয়েছে মিয়ানমার বাহিনী।
মিয়ানমার সেনাদের গুলিতে নিহত পাঁচ রোহিঙ্গা মুসলিমের লাশ শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশে এনে দাফন করা হয়েছে। বুধবার বিকালে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার পাংলখালীর আনজুমপাড়া এলাকা তাদের দাফন করা হয়।
নির্মমতার শিকার এই পাঁচ রোহিঙ্গা মুসলিম হলেন- সুফিয়া আকতার (১৯), ক্বারী ফায়েজুল ইসলাম (৫৬), শামশুল আলম (৫০), ছৈয়দ আলম (৫৫) ও ফয়েজুর রহমান (৯০)। তারা সবাই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের বুচিঢংয়ের বাসিন্দা।
নিহতের স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকালে মিয়ানমার সেনাদের একটি বিশাল বাহিনী তাদের গ্রামের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়ে তাদের উপর আক্রমণ শুরু করে। নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মানুষ হত্যা করে।
এসময় পাঁচ রোহিঙ্গা নিহত হন। সকালে নিহতদের দাফনের প্রস্তুতি নিলে সেখানেও মিয়ানমার সেনারা দুদফা হামলা চালায়। মিয়ানমারে দাফন করতে না পারায় কাঁধে করে মৃতদেহগুলো সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়।
উখিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাই লাউ মার্মা জানান, মিয়ানমারের সেনাদের গুলি ও ধারাল অস্ত্রের আঘাতে নিহত পাঁচজনের মরদেহ এপারে নিয়ে এসেছেন স্বজনরা।
বিকালে উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের আনজুমানপাড়া কবরস্থানে তাদের ইসলামী শরিয়ত অনুযায়ী দাফনের ব্যবস্থা করা হয় বলে জানান তিনি।
Powered by Blogger.