Header Ads

মানবাধিকার ও গণতান্ত্রিক সুরক্ষা কি জিনিস আমরা ভাল জানি’, এরদোগানকে সুচি

রোহিঙ্গাদের নিয়ে কঠিন নিরবতা ভাঙ্গলেন মিয়ামনারের স্টেট কাউন্সিলর অং সাং সুচি। শান্তিতে নোবেল জয়ী সুচি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিচেপ তাইপে এরদোগানের সঙ্গে টেলিফোনে বলেছেন, রোহিঙ্গাদের ওপর কোনো অত্যাচার হচ্ছে না। বরং সন্ত্রাসীদের স্বার্থে অনেক ভুল তথ্য বা অপপ্রচার চলছে। মানবাধিকার ও গণতান্ত্রিক সুরক্ষা থেকে বঞ্চিত হওয়ার মানে কী আমরা খুব ভালভাবে জানি, সবচেয়ে বেশি। এরদোগান টেলিফোন করেন সুচিকে। রোহিঙ্গাদের ওপর হত্যাযজ্ঞ, নির্বিচারে ধর্ষণ ও তাদের বাড়ি ঘর লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ বন্ধ করতে বললে প্রতিউত্তরে সুচি আশ্বাস দিয়ে বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা বিধানে তার সরকার কাজ করছে।
গত দুই সপ্তাহ ধরে মিয়ানমারে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর সহিংসতায় লক্ষাধিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিলেও এই প্রথমবারের মত বিষয়টি নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুললেন সুচি। মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর ও অবিসংবাদিত এই নেতা টেলিফোনে এরদোগানকে আরো বলেন, তার সরকার রোহিঙ্গাদের অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। মানবাধিকার ও গণতান্ত্রিক সুরক্ষা কি জিনিস তা সবচেয়ে ভালবাবে তিনি জানেন। সুচি বলেন, আমরা খুব ভালভাবে জানি, সবার চেয়ে বেশি মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত হওয়ার মানে কী? তাই আমরা নিশ্চিত যে মিয়ানমারের সব মানুষই তাদের অধিকারের সুরক্ষা পাওয়ার অধিকারী। শুধু রাজনৈতিক, সামাজিক ও মানবিক প্রতিরক্ষা নয় সবধরনের মানবাধিকার পাচ্ছে মিয়ানমারের জনগণ।
সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের হতাযজ্ঞ ও নির্বিচারে গণধর্ষণ সহ সহিংসতার কারণে মানবাধিকারের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে সুচির ভাবমূর্তি আন্তর্জাতিক বিশ্বে ব্যাপকভাবে ক্ষুণœ হয়েছে। টেলিফোনে এরদোগানের সঙ্গে কথা বলার সময় সুচি আরো বলেন, রোহিঙ্গাদের নিয়ে অনেক সন্ত্রাসীদের স্বার্থকে উন্নীত করতে অনেক ভুল তথ্য দেওয়া হচ্ছে। রাখাইন অঞ্চলে যাতে সন্ত্রাস ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্যে তার সরকার কাজ করছে বলেও সুচি জানান।
কিন্তু রাখাইন পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে সেখানে রোহিঙ্গাদের জন্যে ত্রাণ মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টারে করে বিতরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কারণ রাখাইন অঞ্চল এখনো নিরাপদ নয়। উপগ্রহ থেকে পাওয়া চিত্রে দেখা যাচ্ছে রোহিঙ্গা মুসলমানদের শত শত ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গাদের ওপর সহিংসতার কথা বলে আসলেও সুচি বরাবরাই নিশ্চুপ থেকেছেন।
আস
Powered by Blogger.