Header Ads

রূপচর্চায় লেবুর ব্যবহার

আমাদের দৈনন্দিন খাবারে লেবুর এবং এর বহুল ব্যবহার স্বাদ বর্ধক হিসেবে। কিন্তু এর বাইরেও লেবুর অন্য কিছু গুণাগুণ আছে যা অনায়াসে রূপচর্চার সহায়ক হতে পারে। চলুন জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত।
লেবুতে আছে সাইট্রিক এসিড যা দিয়ে আমরা সহজেই আমাদের ত্বকে জমে থাকা অতিরিক্ত তেল, ময়লা মরা কোষ এমনকি অবাঞ্ছিত দাগ দূর করতে পারি এবং পেতে পারি উজ্জ্বল গায়ের রঙ এবং কোমলতা। লেবু যে শুধু আমাদের ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা ফিরিয়ে দেবে তা নয় বরং ত্বকের নির্দিষ্ট সমস্যা খুঁজে নিয়ে তার সমাধান এবং ক্ষেত্রে বিশেষে ( Skin Disease) চর্ম রোগ দূর করতেও সহায়তা করে থাকে। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ এই লেবু ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা বাড়ানো ছাড়াও চেহারার বয়সের ছাপ কমাতেও সাহায্য করে। আর লেবুর রস যখন চুলে ব্যবহার করা হয় এর সাইট্রিক এসিড মাথার মরা কোষ দূর করে চুলের তৈলাক্ত ভাব দূর করে এবং খুশকি রোধেও সহায়তা করে।

লেবুর ৫টি ব্যবহার দেখে নিন যা আপনার রূপচর্চার সহায়ক হবে :
১। মুখ পরিষ্কার করতে
১ টেবিল চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ মধুর সাথে ভালো মানের অলিভ অয়েল ভালো মতো মিশিয়ে নিন। প্রয়োজনে কোনো মুখ বন্ধ কৌটায় ভরে ঝাঁকিয়ে ভালো ভাবে মিশিয়ে নিন। উপকরণটি গাঢ় হয়ে একটা মাঝারি মানের মিশ্রণ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর এর সাথে চিনি মিশিয়ে নিন। আপনি প্রয়োজনে মধু, অলিভ অয়েল এবং চিনি কম বা বেশি নিতে পারেন যদি স্ক্রাবটি ( Scrub) পাতলা বা ঘন করতে চান।
২। ফেস প্যাক হিসেবে ব্যবহার করুন
দুই চামচ দইয়ের সাথে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস ভালোভাবে মিশিয়ে ফেস প্যাক তৈরি করুন। চোখের আশেপাশের অংশ বাদ দিয়ে এই প্যাক মুখ এবং গলা, ঘাড়ে লাগিয়ে ২০-৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। যখন আপনার চামড়ায় এই মিশ্রণের টান টান একটা শক্ত ভাব অনুভব করবেন তখন প্রথম হালকা গরম পানিতে মুখ, গলা, ঘাড় ধুয়ে ফেলুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। এতে আপনি সতেজ অনুভব করবেন।
৩। মাথার খুশকি দূর করতে
৪ ভাগের তিন অংশ অলিভ অয়েল, মধু এবং তিন চামচ লেবুর রস দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। মিশ্রণ টি চুলের গোঁড়ায় লাগান। এরপর Heat Cap ব্যবহার করুন অথবা হাতের কাছে টুপি না পেলে হালকা গরম পানিতে তোয়ালে ভিজিয়ে রেখে সে ভাপ টা ধরে রাখতে চুল বেঁধে ভেজা তোয়ালেতে জড়িয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। এরপর চুল শ্যাম্পু করুন এবং লেবুর গুণাগুণ উপভোগ করুন।
৪। চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে
অনেক সময় চুলে তৈলাক্ত ভাব থাকে যা শ্যাম্পু করার পরেও থেকে যায়। সেক্ষেত্রে একটু সচেতন হলেই আপনি পারবেন আপনার চুলের এই অনাকাঙ্ক্ষিত ভাব দূর করতে। আধা কাপ লেবুর রসের সাথে আধা কাপ পানি মিশিয়ে চুলে কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। দেখবেন আপনার চুলের তৈলাক্ত ভাব এই পন্থা অবলম্বন করলে নিমিষেই কেটে যাবে এবং স্বাস্থ্যজ্জ্বোল চুলের অধিকারী হয়ে উঠবেন আপনি।
৫। ব্রণ দূর করতে
মাঝে মাঝে লেবুর রসকে ব্রণ দূরীকরণের দ্রুত প্রতিষেধক হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে। শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও লেবুর রসের ব্যবহার এক রাতের মাঝেই আপনার ত্বকের ব্রণকে ভ্যানিশ করে দিতে পারে। এ জন্য আপনাকে মুখ ভালো মতো ক্লিঞ্জিং ক্রিম দিয়ে ধুয়ে একটা তুলো দিয়ে ব্রণ যেখানে হয়েছে শুধু সেখানেই হালকা ভাবে ঘসে নেবেন। লেবুর রসের পরিমিত ব্যবহারে আপনি ব্রণের মতো অস্বস্তিকর অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে পারেন।
তবে মনে রাখবেন রাসায়নিক উপকরণের চেয়ে প্রাকৃতিক উপকরণে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। তবে যে কোনো কিছুই ত্বকে ব্যবহার করার আগে নিজের হাতের কব্জিতে লাগিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন।

তথ্যসূত্র: ইন্টারনেট
Powered by Blogger.