Header Ads

ষোড়শ সংশোধনীর রায় বাতিলে আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের চার দিনের আল্টিমেটাম !

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে দেয়া ‘অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্য’ আগামী ২৪ আগস্টের মধ্যে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বাদ দেয়া না হলে একদফা কর্মসূচি দেয়ার হুমকি দিয়েছে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ।
রোববার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমিতি ভবনের দক্ষিণ হলে এক প্রতিবাদ সমাবেশে সংগঠনের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস এ হুমকি দেন।
ব্যারিস্টার তাপস বলেন, ‘আমাদের এই প্রতিবাদ, বিক্ষোভ এবং আন্দোলন চলমান থাকবে। শুধু এটুকু বলতে চাই- আগামী ২৪ তারিখের পরে কোর্ট বন্ধ (অবকাশকালীন ছুটি) হয়ে যাচ্ছে। এই ২৪ তারিখের মধ্যে আমাদের দাবি- ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে দেয়া অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্যগুলো বাদ দিতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্য স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে অপসারণসহ পূর্ণ রায়টি বাতিলের দাবি করছি এবং এই ২৪ তারিখের (২৪ আগস্ট) মধ্যে যদি সেটা না করা হয়, আমরা ছুটির পরে দেশব্যাপী বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি দেব।’
ব্যারিস্টার তাপস হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘সেক্ষেত্রে আমাদের দাবি এক দফা দাবিতে পরিণত হতে পারে। সুতরাং এ বিষয়টি বিবেচনায় রেখে অনতিবিলম্বে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রধান বিচারপতিসহ সুপ্রিম কোর্টের যে সকল বিচারপতি রায় দিয়েছেন, তাদেরকে অনুরোধ করছি। তাদের কাছে আামদের দাবি পেশ করছি।’
তিনি বলেন, ‘আামি রায়ের ব্যাপারে এটুকু বলবো- যতই আমি রায় পড়ছি, ততই আমি অবাক হচ্ছি। এ ষোড়শ সংশোধনীর রায় বাতিলে আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের চার দিনে ই রায়ে এমনকি বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম এবং আমাদের ধর্ম ইসলামের ব্যাপারেও যেই যুক্তিতর্ক পেশ করা হয়েছে আমি তার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।’
বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিব বলেন, ‘আমরা মনে করি, রায়ের মধ্যে এভাবে অপ্রাসঙ্গিকভাবে ধর্মকে টেনে আনা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। কোনোদিনও এভাবে (পূর্বের সকল রায়ের মধ্যে) যুক্তিতর্ক পেশ করার নজির আমরা পাইনি।’
তিনি বলেন, ‘আমরা দ্বার্থহীন কণ্ঠে বলতে চাই। ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি আমরা সহ্য করব না। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে, সংসদ সদস্যদেরকে নিয়ে কটূক্তি করা হয়েছে, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নিয়ে যেভাবে অবজ্ঞা করা হয়েছে- এসব কারণে এ রায় অবিলম্বে বাতিলে আমরা জোর দাবি পেশ করছি।’
জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে যে পর্যবেক্ষণ দেওয়া হয়েছে এবং ওই পর্যবেক্ষণে বঙ্গবন্ধুকে ইঙ্গিত করে খাটো করা হয়েছে। এটা আমরা কোনো অবস্থাতেই মানতে পারি না। সুতরাং এই পর্যবেক্ষণ অপ্রাসঙ্গিক ছিল, তা প্রত্যাহার করে নিতে হবে।’
প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে আগামী ২২ আগস্ট একই দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেন তিনি। ওই দিন পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও জানান ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন।
প্রতিবাদ সমাবেশে বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল বাসেত মজুমদারসহ আওয়ামীপন্থী বিপুল সংখ্যক আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।
পরিবর্তন
Powered by Blogger.