Header Ads

আপনি প্রশাসনের সঙ্গে আপোশ করে চলছেন: অ্যাটর্নি জেনারেলকে প্রধান বিচারপতি


বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম 'প্রশাসনের সঙ্গে আপোশ করে চলছেন' বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। আজ (বুধবার) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা সংক্রান্ত মামলার আপিল শুনানির সময় প্রধান বিচারপতি এ মন্তব্য করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা  মামলার শুনানিতে অ্যাটর্নি  জেনারেল মাহবুবে আলম আদালতকে বলেন, ‘এখনও কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরা হচ্ছে।’ তখন  প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘কেন আমরা তো আদেশ দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছি।’

এসময় অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘আমার বাড়ি পদ্মার পাড়ে। আমি তো এখনও দেখি, কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরা হচ্ছে।’

এর জবাবে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর না হলে আমাদের কী করার আছে। আমি শুনলাম, আপনি নির্বাচন করছেন তাইতো এলাকায় যান। আপনি তো প্রশাসনের সঙ্গে আপোশ করে চলছেন।’

প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, ‘আমরা তো ইলিশের গন্ধ পাই না। যত তাড়াতাড়ি এটা (নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা) ঠিক করবেন, ততই সরকারের লাভ।’

এর আগে প্রধান বিচারপতি অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আমি আপনাকে একটা তালিকা দেবো। সিআরপিসি’র সঙ্গে এর কয়েকটি ধারা সাংঘর্ষিক। এগুলো ঠিক হওয়া উচিত। আমরা আইনের বাইরে বিচার করব না। আইনের অধীনেই বিচার করব।’

অ্যাটর্নি জেনারেল সময় আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘আমার প্রস্তুতির জন্য সময় দরকার।’ পরে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির আপিল বেঞ্চ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ ১০ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত করেন। এর ফলে এই সময় পর্যন্ত নির্বাহী হাকিম দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় আইনগত কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

গত  ১১ মে নির্বাহী হাকিম দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত (মোবাইল কোর্ট) পরিচালনা সংক্রান্ত ২০০৯ সালের আইনের ১১টি ধারা ও উপধারাকে অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এই আইনে নির্বাহী হাকিম দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ঘোষণা করে।
Powered by Blogger.