Header Ads

বঙ্গভবনে হামিদ- ওবায়দুল-সিনহা বৈঠকে সিনহাকে পদত্যাগ করতে বলা হয়

বিশেষ প্রতিনিধি
গত ১৪ আগস্ট রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে বঙ্গভবনে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তাদের মধ্যে ষোড়শ সংশোধনী বাতিল রায়ের বিষয়ে আলোচনা হয়।
এটুকু আমরা সংবাদমাধ্যম থেকে জানি। আরেকটা তথ্য জানি তা হল, ওই একই সময়ে বঙ্গভবনে ছিলেন প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা। সংবাদমাধ্যমে জানানো হয় তিনি হিন্দুদের জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বঙ্গভবনে গিয়েছিলেন।
তবে আওয়ামী লীগ ও সরকারের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ একই সাথে প্রধান বিচারপতি ও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদককে ডেকেছিলেন। এটা আওয়ামী লীগের হাইকমান্ডের নির্দেেশেই হয়েছে।
আব্দুল হামিদ এবং ওবায়দুল কাদের মিলে সিনহার সাথে ষোড়শ সংশোধনী ইস্যুতে কথা বলেন। তারা উভয়ে এ ইস্যুতে শেখ হাসিনার মনোভাব সিনহাকে জানান। এবং এটাও জানান যে, শেখ হাসিনা চান সিনহা যেন নিজেই নিজের পদ ছেড়ে দেন। কিন্তু সিনহা তাতে নমনীয়তা দেখাননি।
গোপন সমঝোতা চেষ্টায় সিনহা নমনীয় না হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একই দাবি নিয়ে প্রকাশ্যে আসেন। গত সোমবার তিনি এক অনুষ্ঠানে বলেন, সংসদ নিয়ে কথা বলার আগে প্রধান বিচারপতির উচিত ছিল পদত্যাগ করা। এছাড়াও সিনহার অন্যান্য বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন হাসিনা।
সূত্র জানায়, নিজে পদত্যাগের দাবি তোলার আগে শেখ হাসিনা তার অনুগত ও সুবিধাভোগী সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হককে সামনে নিয়ে আসেন একই নিয়ে। গত শনিবার খায়রুল হক এক অনুষ্ঠানে বলেছিলেন, সংসদ ও রাজনীতি নিয়ে যেসব কথা সিনহা তার রায়ে বলেছেন, সেগুলোর কারণে তার শপথ ভঙ্গ হয়েছে। আর শপথ ভঙ্গ হলে কেউ তার পদে থাকতে পারে না!
Powered by Blogger.