Header Ads

মিয়ানমার সীমান্তে আরও ১৫ হাজার বিজিবি নিয়োগ করা হবে

বিজিবির ‌বিজিবির ভিশন-২০৪১ এর আওতায় ভবিষ্যতে আরও ১৫ হাজার বিজিবি সদস্য নিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন।

রোববার বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত এলাকা পরিদর্শনের পর তিনি একথা জানান।

বিজিবি প্রধান বলেন, আমাদের সীমান্তে কোনো সন্ত্রাসীকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়া হবে না। মিয়ানমারের বাহিনী সীমান্ত আইন লঙ্ঘন করে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করলে বিজিবি তার সমুচিত জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে।

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে উত্তপ্ত পরিস্থিতি প্রায়শই সৃষ্টি হয়।

সর্বশেষ শনিবার দুপুরে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের তমব্রু এলাকায় শূন্যরেখায় আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের লক্ষ্য করে সীমান্তের ওপার থেকে গুলি চালায় মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

এ ঘটনার পর বাংলাদেশ সীমান্তে সতর্কতা বাড়ানো হয়েছে বলে জানান বিজিবি কক্সবাজার-৩৪ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মঞ্জুরুল হাসান খান।

এদিকে মিয়ানমার সরকারের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ৩০টি পুলিশ ক্যাম্পে হামলায় দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১২ সদস্যসহ অন্তত ৭১ জন নিহত হয়েছে।

ওই হামলার ঘটনায় উত্তেজনা আর শঙ্কার মধ্যে কক্সবাজার ও বান্দরবান সীমান্ত দিয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা করছে। তবে নতুন করে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশে প্রবেশে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বিজিবি।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারে জাতিগত নিপীড়নের শিকার হয়ে বাংলাদেশে ৫ লাখের বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়ে আছে কয়েক দশক ধরে। মুসলিম রোহিঙ্গাদের নিজ দেশের নাগরিক হিসেবে অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সরকার।
Powered by Blogger.