Header Ads

উইমেন্স কলেজের প্রভাষক শিবির নেতা আসাদকে কুপিয়েছে ছাত্রলীগ


বৃটানিকা উইমেন্স কলেজ, মির্জাজাঙ্গালের যুক্তিবিদ্যার প্রভাষক ও শিবির নেতা আসাদুল আলম চৌধুরীকে কুপিয়েছে ছাত্রলীগ। আজ শনিবার (১৯ আগস্ট) দুপুর আড়াইটার দিকে নগরীর মির্জাজাঙ্গাল এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে। মারাত্মক আহত আসাদকে তাৎক্ষণিকভাবে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সুত্রে জান যায়, বৃটানিকা উইমেন্স কলেজের প্রভাষক, শিবির নেতা আসাদ কলেজের কাজ শেষ করে প্রায় প্রতিদিন কলেজের সামনে একটি দোকানে আড্ডা দেন। প্রতিদিনের মতো আজ ২টা ৫ মিনিটে কলেজ শেষ করে ঐ দোকানে চা খেতে বসেন আসাদ। দুপর আড়াইটার দিকে ৩/৪টি মোটরসাইকেল করে আসাদের উপর হামলা চালায় ছাত্রলীগের মির্জাজাঙ্গালের একটি গ্রুপ। দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে আসাদকে ফেলে যায় তারা। এতে আসাদের দুই পা মারাত্মকভাবে  জখম হয়। স্থানীয়দের সহযোগিতায় পরবর্তীতে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বৃটানিকা কলেজের অধ্যক্ষ জি কিউ এম আলমগীর উত্তরপূর্বকে জানান- প্রায় ২ বছর থেকে এই প্রতিষ্ঠানে যুক্তিবিদ্যায় শিক্ষকতা করে আসছেন আসাদ। ঠিক কি কারণে তার উপর হামলা হয়েছে, তা তিনি জানেন না। হামলার পর থেকে কলেজ ক্যাম্পাসে আতংক বিরাজ করছে বলেও জানান তিনি। এ ব্যাপারে কলেজ থেকে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেছেন অধ্যক্ষ।

কোতোয়ালী থানার ওসি গৌসুল হোসেন উত্তরপূর্বকে জানান- হামলা হয়েছে বলে জানান তিনি। ঠিক কে, এবং কি কারণে হামলার শিকার হয়েছে তিনি তা এখনো জানতে পারেন নি। কোতোয়ালী থানা থেকে হাসপাতালে ফোর্স পাঠানো হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি।

এব্যাপারে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল বাছিত রুম্মান হামলায় দায় স্বীকার করে উত্তরপূর্বকে জানান- শাহিন-আসিফের উপর হামলা, সেটা নিয়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা তথ্য ছড়ানো এবং কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের নিয়ে আপত্তিকর ও মানহানিকর মন্তব্য করার কারণে শিবির নেতা আসাদের উপর হামলা করেছে ছাত্রলীগ।

স: উত্তরপূর্ব২৪ডটকম
Powered by Blogger.