Header Ads

রোহিঙ্গাদের নিয়ে উদ্বিগ্ন পোপ ফ্রান্সিস’

মিয়ানমারের রাখাইন থেকে নির্যাতনের মুখে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের নিয়ে উদ্বিগ্ন পোপ ফ্রান্সিস। তিনি রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান চান।
সোমবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে পোপের আসন্ন ঢাকা সফর উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে ভ্যাটিক্যানের রাষ্ট্রদূত জর্জ বুচেরি বলেন, ‘রোহিঙ্গা বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে পোপ বক্তব্য দিয়েছেন। তিনিও এই সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান চান।’
গত বুধবার মিয়ানমারে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত রাখাইন রাজ্যে নিরাপত্তাকর্মীদের ওপর সশস্ত্র গোষ্ঠীর হামলার পর রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী। আর এরপর দলে দলে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশের দিকে ছুটে আসছে। তাদেরকে বাংলাদেশে ঠেলে দিতে দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীদের ওপর গুলি করছে বলেও জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। এর আগেও বিভিন্ন সময় রোহিঙ্গাদের ওপর অকথ্য নির্যাতন চলে রোহিঙ্গাদের ওপর।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী নভেম্বরে তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। মিয়ানমার সফর শেষ করে নভেম্বরের ৩০ তারিখ পোপ ফ্রান্সিস ঢাকায় এসে পৌঁছাবেন। তিনি ৩০ নভেম্বর এবং ১  ও ২  ডিসেম্বর ঢাকায় সফর করবেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রপ্রধান এবং ক্যাথলিকমণ্ডলীর প্রধান ধর্মগুরু হিসেবে পোপ বাংলাদেশ সফর করবেন।
সফরকালে তিনি রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনি বৈঠকে মিলিত হবেন। এছাড়াও তিনি নাগরিক সমাবেশে দেশের সুশীল সমাজের বিভিন্ন ব্যক্তি ও বিভিন্ন মহলের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সঙ্গে দেখা করবেন।
গত বছরের ১০ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পোপ ফ্রান্সিসকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে গত নভেম্বরে তিনি বাংলাদেশ সফরের তারিখ নির্ধারণ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ক্যাথলিক বিশপস কনফারেন্স অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট কার্ডিনাল প্যাট্রিক ডি’রোজারিও, ঢাকার সহকারী বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস গোমেজ।
Powered by Blogger.